July 18, 2018, 7:44 pm

স্বাগতম

দেশের সবথেকে বড় এসইও ব্লগে আপনাকে স্বাগতম।আপনার প্রয়োজনীয় বিষয় খুজে পেতে দয়াকরে সার্চ বক্সে সার্চ করুন।আপনার কাঙ্খিত বিষয় না পাওয়া গেলে দয়াকরে আমাকে জানান।আমরা খুব শীঘ্রই এর উপরে টিউটোরিয়াল দেওয়ার চেস্টা করব।ধন্যবাদ-মোঃশাওন (Admin)

মেন্যুয়াল পেনাল্টি কী? কেন দেয়? কীভাবে রিকোবার করব?

মেন্যুয়াল পেনাল্টি কী? কেন দেয়? কীভাবে রিকোবার করব?

guide of google manually penalty by skill71

Note: আর্টিকেল পড়তে বোরিং লাগছে? তাহলে সরাসরি নিচের ভিডিওটি দেখে নিন।

গুগলের সবথেকে Hard পেনাল্টি হলো manual action এর মাধ্যমে গুগল যে পেনাল্টি দিয়ে থাকে। এসইও মহলে এটা মেন্যুয়াল একশন নামেই পরিচিত।আজাইরা পেচাল বাদ দিয়া সরাসরি কাজের কথায় চলে যাচ্ছি।

Manual action মানেটা কীঃ

গুগলের কোয়ালিটি গাইডলাইন টিম রয়েছে।আপনি যদি নিজেকে খুব চতুর ভাবেন ও আর মনে করেন রোবটটো রোবটই আর আমি হলাম ন্যাচারাল ইন্টেলিজেন্ট সমৃদ্ব মানুষ।

যথারীতি আপনি আপনার চতুরতার বহিঃপ্রকাশ করে গুগল রোবটকে ফাকি দিয়ে ঠিকই রাঙ্ক করে নিলেন।

কী ভেবেছেন?

আপনি পার পেয়ে গেলেন।

না; যদি low quality একটা ওয়েবসাইট ভালো ভালো ওয়েবসাইটের সাথে একই সারিতে রাঙ্ক করে তাহলে গুগল এর কোয়ালিটি গাইডলাইন টিম আপনার ওয়েবসাইটে মেন্যুয়ালী ভিজিট করে দেখবে।আর তখন আপনার চতুরতা দেখিয়ে দিবে।এমন পেনাল্টি দিবে সেটা হয়ত ২০০ নাম্বারেও খুজে পাবেন না।

So,Be careful

 

যে যে কারনে গুগল মেন্যুয়ালী একশন নিয়ে কোন ওয়েবসাইটকে পেনাল্টি দেয়ঃ

এক কথায় আপনি যদি গুগলের ওয়েবমাস্টার কোয়ালিটি গাইডলাইগুলা ফলো না করেন তাহলে গুগল আপনাকে এই পেনাল্টি দিবে।

সেজন্য জানতে হবে গুগল ওয়েবমাস্টার কোয়ালিটি গাইডলাইনগুলো কী কী।

 

গুগল ওয়েবমাস্টার কোয়ালিটি গাইডলাইন

just গুগলে সার্চ করেন “webmaster Guideline”। প্রথম রেজাল্টে ক্লিক করে একটু নিচের দিকে নামেন।

নিচের মতো দেখতে পাবেন।যেখানে basic principles ও Specific guidelines নামে দুটি অপশন পাবেন।আমি দুইটিরই বাংলা অনুবাদ করে দিচ্ছি।

 

গুগল ওয়েবমাস্টার কোয়ালিটি গাইডলাইন গুলো যা যা

Basic principles:

1) আপনার ওয়েবসাইট ইউসারদের জন্য তৈরী করুন।সেটা যেন শুধু সার্চ ইঞ্জিনে রাঙ্ক করার জন্য না হয়।

2) কন্টেন্টগুলা সার্চ ইঞ্জিন ফ্রেন্ডলী না করে ইউসার ফ্রেন্ডলী করুন।

যেমনঃ

  • কী-ওয়ার্ড স্টাফ করা যাবে না
  • ইউসারকে বুজানোর জন্য যেখানে ছবি দেওয়া দরকার সেখানে ছবি দিবেন
  • যেখানে যেটা দেওয়ার দরকার নাই সেখানে সেটা জোরকরে দিবেন না।

 

3) কখনো আপনার ভিজিটরদের সাথে প্রতারনা করবেন না।

যেমনঃ ফেসবুকে/ইউটিউবে এরকম অনেক কিছু দেখবেন “ একি করল শাহরুখ খান,দেখুন ভিডিওসহ”।

ক্লিক করবেন দেখবেন তেমন কিছুই না।

মানে খাজনার থেকে বাজনা বেশী।আপনার টাইটেলের সাথে আপনার কন্টেন্ট এর ৫০%ও মিল নাই। এই রকম করলে ভিজিটর আপনার ওয়েবসাইটে যাওয়ার সাথে সাথে বাউন্স করবে।ফলে সার্চ ইঞ্জিন সহজেই বুজে যাবে,Something is wrong।

 

4) সবসময় ন্যাচারাল এসইও করবেন।

গুগল এর কিছু দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে তৈরী হয়েছে এসইও এর কিছু টিপস এন্ড ট্রিক্স। এই সমস্ত আউল-ফাউল টিপস এন্ড ট্রিক্স সবসময় Avoid করুন।

আপনার মতো করে আপনার ওয়েবসাইটকে অন্যদের থেকে ইউনিক করে তুলুন।অন্যদেরটা কপি করতে যাবেন না।

এবার আসি Specific Guideline এ

Specific Guideline:

1) অটোমেটিক জেনারেটেড কন্টেন্ট।

এটার মানে হলো,বিভিন্ন টুলস আছে যারা অটোমেটিক কন্টেন্ট প্রোভাইড করে।আপনি তাদের একটা কপি কন্টেন্ট দিবেন আর তারা সেটাকে অটোমেটিকভাবে চ্যাঞ্জ করে একটা ইউনিক কন্টেন্ট বানিয়ে দিবে।যেটাকে Article spinner/Article rewriter ইত্যাদি নামে ডাকা হয়।

আর আপনি সেটা কোন রকম মডিফাই না করে,কোন রকম মেন্যুয়াল ইউনিকনেস না দিয়ে,কোন রকম রিভিশন না দিয়ে যেভাবে আছে যেভাবেই পাবলিশ করে দিলেন।

এটাতো একটা চাক্ষুস বোকামি।এমনটা করা যাবে না।

তবে আপনি বিভিন্ন ওয়েবসাইট থেকে হেল্প নিয়ে,গুগল ট্রানস্লেট ব্যবহার করে ম্যানুয়ালী ইউনিক কন্টেন্ট বানাতে পারেন।সেক্ষেত্রে কোন সমস্যা নাই।

কীভাবে ম্যানুয়ালী ইউনিক কন্টেন্ট বানাবেন তা জানতে আমাদের এই আর্টিকেলটি পড়তে পারেন।

2) রিসিপলোকাল লিঙ্কের কোন কারবার করা যাবে না।

আমাকে বললেন ভাই আমি তোমারে একটা লিঙ্ক দিমো আর তুমি আমারে একটা লিঙ্ক দিবা।এমনটা করা যাবে না।

 

3) সবসময় ছোট কন্টেন্ট থেকে বিরত থাকবেন।

তবে প্রয়োজন হলে অন্য কথা।আর কপির তো কোন প্রশ্নই আসে না।

 

4) আপনার ভিজিটরকে সার্চ ইঞ্জিন রেজাল্ট পেইজে দেখালেন গাজর আর আপনার ওয়েবসাইটে এনে দিলেন মূলা।

আপনার ওয়েবসাইটে যা আছে সেইভাবেই মেটা লিখবেন।আকর্ষনীয় কোন কিছু লিখে বাজে একটা জিনিস ধরিয়ে দিবেন না।

অযথা বা উদ্দেশ্যমূলকভাবে কিংবা ভিজিটর বা সার্চ ইঞ্জিনকে ফাকি দিয়ে কখনো আপনার ওয়েবপেজকে অন্য ওয়েবসাইটে রি-ডাইরেক্ট করবেন না।প্রয়োজন হলে অব্যশ্যই করবেন।সেটা সার্চ ইঞ্জিন এমনিতেই বুজে নিবে।কোনটা আপনি প্রয়োজন সাপেক্ষে করেছেন আর কোনটা প্রতারনামূলকভাবে করেছেন।

অনেকেই প্রশ্ন করতে পারেন,আমি প্রতারনা করি কিংবা গাজর দেখিয়ে মূলা দেই সেটা আবার গুগলের রোবট কেমনে বুজবে?

তাদের একটা কথাই বলব,গুগল রোবট যেখানে আপনার মুখের ভাষাই বুজে ফেলছে এবং সেটা অনুযায়ী আপনি সার্চ করা মাত্রই লক্ষ্য লক্ষ্য ওয়েবপেইজ ফিল্টারিং করে মাত্র কয়েক মিলি-সেকেন্ডের মধ্যে আপনাকে সঠিক রেজাল্টটি দেখিয়ে দিচ্ছে।

গুগল ট্রানস্লেট এর রোবটগুলা মূহুর্তের ভিতর এক ভাষাকে আরেক ভাষায় কনভার্ট করে ফেলছে।সেখানে এই কাজগুলা তো তাদের কাছে কিছুই না।

 

5) আবার কী করলেন।আপনি আপনার আর্টিকেলের নিচে কী-ওয়ার্ডগুলা অনেকবার লিখে সেটার কালার ব্যাকগ্রাউন্ডের সাথে মিশিয়ে দিলেন যাতে সার্চ ইঞ্জিন ঠিকই দেখে আর ভিজিটর না দেখে।এটাও করা যাবে না।

বর্তমান এসইওতে হিডেন বলতে কোন কিছু নাই।যা করবেন সবকিছুই প্রকাশ্যে করতে হবে।

 

আবার

6) ধরেন আপনি একটা ফন্দি করলেন।আপনি ইন্টারন্যাশনালী ওয়েব-হোস্টিং এর বিজনেজ করেন।এখন মাত্র কয়েকটা কী-ওয়ার্ডে রাঙ্ক করা আপনার ভালো লাগলো না।আপনার কী-ওয়ার্ড-Best web hosting।

আপনি এখন কী করলেন-

ঢাকার জন্য একটা,কলকাতার জন্য একটা আর লন্ডনের জন্য একটা করে মোট ০৩টা আর্টিকেল সার্চ ইঞ্জিনে সাবমিট করলেন।

কী-ওয়ার্ডগুলো হচ্ছে-

best web hosting in Dhaka,

best web hosting in Kolkata

best web hosting in London

তিনটা পেইজকেই আপনি আলাদাভাবে রাঙ্ক করলেন।Then,সবগুলাকে আপনার আসল পেইজে রি-ডাইড়েক্ট করে নিয়ে আসলেন।

ভুলেই এই কাজ করবেন না।

কয়েকটা ভিজিটর পাওয়ার থেকে একটা পেনাল্টি থেকে সেভ থাকা অনেক অনেক জরুরী।

৭) সরাসরি এমন আর্টিকেল আপনার সাইটে রিপাবলিশ করবেন না যেটা ইউসারকে কোন ভেল্যু প্রদান করে না।প্রয়োজনে অব্যশ্যই করবেন।

যেমন আমরা এই আর্টিকেলটি ফেসবুক থেকে রি-পাবলিশ করেছি যেটা আমাদের ইউসারকে যথেষ্ট্য হেল্প করতেছে।

আবার

৮) এফিলিয়েট প্রোগ্রামে পার্টিসিপেট করলেন ঠিকই কিন্তু সেটার প্রোডাক্ট ডেসক্রিপশন,ইমেজ সরাসরি আসল ওয়েবসাইট থেকে কপি করে নিয়ে আসলেন।এমনটা না করে নিজের মতো করে সবকিছু লিখেন না।কী দরকার কপি করার।এটা থেকে বিরত থাকবেন।

 

৯) অপ্রাসঙ্গিকভাবে একটা আর্টিকেল এর মধ্যে কোন কী-ওয়ার্ড প্রবেশ করাবেন না।

যেমনঃ আপনি বাংলাদেশ নিয়ে লেখা একটি আর্টিকেল এর ভিতর অপ্রাসঙ্গিকভাবে ওয়াশিংটন ঢুকিয়ে দিলেন।কীসের মধ্যে কী।তবে প্রসঙ্গক্রমে অব্যশ্যই আসতে পারে।

১০) ডাউললোড ওয়েবসাইটে যদি ফাইল ডাউনলোডের সাথে malware জাতীয় কোন কিছু ডাউনলোড হয় তাহলে কিন্তু সাথে সাথে গুগল আপনার খবর করে দিবে

 

১১) যত্রতত্র Schema tag ইউস করা থেকে বিরত থাকুন

 

উপরের এই কাজগুলো করলে আপনার ওয়েবসাইট গুগল এলগরিদম পেনাল্টি দিবে না ঠিকই কিন্তু গুগল এর কোয়ালিটি গাইডলাইন টিম এসে যখন দেখবে আপনি এই কাজগুলো করেছেন তখন তারা মেন্যুয়ালী আপনাকে বড় ধরনের একটা পেনাল্টি দিবে যেটার ক্ষতি হয়ত আপনি কখনোই পুরিপুরি পুষিয়ে উঠতে পারবেন না।

 

কীভাবে বুজব আমার সাইট মেন্যুয়ালী পেনাল্টি খেয়েছে কিনা?

অন্যন্যা পেনাল্টি থেকে এটা বুজা খুবই সহজ।গুগল আপনাকে যখন মেন্যুয়ালী কোন পেনাল্টি দিবে তখন তারা আপনাকে ওয়েবমাস্টারে একটি ম্যাসেজ দিবে ও আপনি ওয়েবমাস্টার এর Search analytics এ গিয়ে manually action এ ক্লিক করলেই দেখতে পাবেন আপনার ওয়েবসাইট কোন মেন্যুয়ালী কোন পেনাল্টি খেয়েছে কিনা।

যদি খেয়েই থাকে তাহলে সেটা রিকোবার করব কেমনে?

যদি আপনার ওয়েবসাইট মেন্যুয়ালী কোন পেনাল্টি খেয়েই থাকে তাহলে তো আপনি Search analytics এর manual actions এ গিয়ে সেটা দেখতে পাবেন।তাই না?এর নিচেই আপনি দেখতে পাবেন-Request a review.

 

এই মেন্যুয়াল পেনাল্টি খাওয়ার পিছনে আপনার ওয়েবসাইটে উপরের যে যে কারন বিদ্যামান রয়েছে সবগুলা আগে solve করেন।

Then,আপনি Request a review তে ক্লিক করে গুগলকে রিকোয়েষ্ট করুন যে আপনি সব সমস্যা সমাধান করেছেন,তারা যেন আপনার ওয়েবসাইটটি পুনরায় একটু দেখে।

যখন গুগল এর কোয়ালিটি গাইডলাইন টিম দেখবে যে আপনার ওয়েবসাইটটিতে এখন আর কোন প্রোবলেম নাই তখন তারা পুনরায় আপনার ওয়েবসাইটটি রাঙ্ক করবে ইংশাল্লাহ।

 

মনে রাখবেন,১০০% সৎ থাকলে গুগল কখনোই আপনার ওয়েবসাইটকে কোনরকম পেনাল্টি দিবে না।

এই সৎ থাকা বলতে আসলে কী কী থেকে বিরত থাকতে বলা হচ্ছে সেটা বুজার জন্য আপনার বিবেকই যথেষ্ট।আলাদা করে মনে হয় বলার দরকার নাই।

তারপরেও যারা একেবারেই নতুন তারা জানার জন্য পড়তে পারেন।আমরা এখানে ” সৎ থাকার বিষয়গুলো ” যথাসাধ্য বুঝানোর চেস্টা করেছি।

ওয়েবসাইটকে পেনাল্টি থেকে নিরাপদ রাখতে ফলো করতে হবে যে বিষয়গুলো

এটাই ছিল মোটামোটি গুগল এর মেন্যুয়াল পেনাল্টি নিয়ে আমাদের skill71 টিম এর সংক্ষিপ্ত আলোচনা।

আমরা এই মেন্যুয়াল পেনাল্টি নিয়ে বিস্তারিত একটি ভিডিও বানিয়েছি।আরো জানার জন্য ভিডিওটিও দেখতে পারেন।

আপনার কোন জিজ্ঞাসা থাকলে কমেন্ট করুন

 

ইন্টারনেট মার্কেটিং ও ব্লগিং এর প্রতি অসম্ভব আসক্ত একটা ছেলে।আর সেই আসক্তি থেকেই তৈরী করা -Skill71 Team।এখন নিজের সব চাওয়া পাওয়া,স্বপ্ন,ক্যারিয়ার,ভালোলাগা,খারাপ লাগা,সফলতা,ব্যার্থতা সবকিছু যেন ভার্চুয়াল জগতের মধ্যেই সীমাবদ্ব হয়ে আছে।তৈরী করতে চাই ইন্টারনেট মার্কেটিং নিয়ে শক্তিশালী একটি নেটওয়ার্ক যেখানে ইন্টারনেট মার্কেটিং এর সবকিছুই পাওয়া যাবে সম্পূর্ন ফ্রিতে

আপনার অনুভূতি জানিয়ে দিন....( like/dislike/Recommended )
সকলের কাছে বার্তা পৌছে দিতে শেয়ার করুন।যদি গ্রহনযোগ্য মনে হয়
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


Leave a Reply

Your email address will not be published.

সাথে সাথে ক্লাসের আপডেট পেতে Subscribe করে রাখুন

সর্বসত্ব সংরক্ষিত -Md Shawon from Skill71 Team
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com